City Today News

মোদিকে রুখতে চায় কেন বিরোধীরা?

IMG 20240605 WA0019

কাল, রবিবার নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে এনডিএ সরকার শপথ নিতে চলেছে। পরপর তিনবার মোদির নেতৃত্বে সরকার হতে চলেছে, যা ছ’দশক বাদে জওহরলাল নেহরুর রেকর্ড ছুঁতে চলেছে। কিন্তু বিরোধীদের তা সহ্য হচ্ছে না। তাঁরা বলে বেড়াচ্ছেন, নরেন্দ্র মোদির বদলে অন্য কারও নেতৃত্বে সরকার গড়া উচিত। এনডিএ-র শরিক দলগুলি কার নেতৃত্বে সরকার গড়বে, তা কি ঠিক করে দেবে বিরোধীরা? হাস্যকর ছাড়া আর কী হতে পারে? আসলে বিরোধীরা মোদিকে ভয় পাচ্ছেন বলে মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। রাশ হাতে থাকলে মোদি পরিস্থিতি অনুকূলে নিয়ে আসতে পারেন, অগ্রগতির রথ ছোটাতে পারেন, এটাই আশঙ্কা বিরোধীদের।


বিজেপি সংখ্যাগরিষ্ঠতার নম্বর না পেলেও এবারের লোকসভা নির্বাচনে সব দলের চেয়ে অনেক বেশি আসন পেয়েছে, এমনকী সব বিরোধী দল মিলে যত আসন পেয়েছে, তার চেয়েও বেশি আসন পেয়েছে। বৃহত্তম বিরোধী দল কংগ্রেস ২০১৪, ২০১৯ এবং ২০২৪ সালে যত আসন পেয়েছে, তার সব মিলিয়েও এবার বিজেপির পাওয়া মোট আসনের ধারেকাছে আসছে না। অন্যদিকে, বিজেপি সমর্থিত এনডিএ এবার সংখ্যাগরিষ্ঠতা চেয়েও বেশি আসন পেয়েছে। তাই হিসাবমতো কেন্দ্রে তাদের সরকার গড়তে কোনও অসুবিধা নেই। বিজেপি-সহ এনডিএ-র সমস্ত শরিক দল নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে সরকার গড়তে সম্মতি জানিয়েছে।
কিন্তু নরেন্দ্র মোদি যেভাবে সব শরিক দলকে নিয়ে তাদের মতামতের ভিত্তিতে সরকার গড়তে চলেছেন এবং নতুন শরিক দলগুলিকে কাছে টানতে উদ্যোগী হয়েছেন, তাতে বিরোধীরা শঙ্কিত। তাছাড়া মোদি বিকশিত ভারত গড়ার লক্ষ্যে অবিচল। পরিকাঠামো-সহ অন্যান্য উন্নয়ন প্রকল্পকেও এগিয়ে নিয়ে যেতে চান। আর্থিক বৃদ্ধি বজায় রেখে কয়েক বছরের মধ্যে তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ হিসাবে ভারতকে তুলে আনার লক্ষ্যও রয়েছে। সেইসঙ্গে যুব সম্প্রদায়ের উন্নয়নের পরিকল্পনাও রয়েছে। দাম নিয়ন্ত্রণে রাখার ওপরও জোর দেওয়া হবে। এসব কাজ এনডিএ-র শরিক দলগুলির ঐকমত্যের ভিত্তিতেই হবে বলে জানিয়েছেন মোদি। আর এতেই বিরোধীদের মোদি-অ্যালার্জি বেড়েছে।

City Today News

monika and rishi

Leave a comment