City Today News

কাল শেষ দফার ভোটে কিছু জায়গায় গন্ডগোলের আশঙ্কা

IMG 20240531 213600

কাল, শনিবার সপ্তম তথা শেষ দফার নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের ন’টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ। এই কেন্দ্রগুলিতে তৃণমূল কংগ্রেসের আধিপত্য বরাবরই বেশি। গত লোকসভা নির্বাচনেও এই কেন্দ্রগুলিতে তারা জিতেছিল। কিন্তু এবার বিজেপি কড়া চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেওয়ায় লড়াই জোরদার হওয়ার সম্ভাবনা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাকদ্বীপ, বারাসতের জনসভা এবং উত্তর কলকাতার রোড শো-তে মানুষের অত্যধিক ভিড় হওয়ায় বিজেপি আশার আলো দেখছে। অন্যদিকে, তৃণমূল কংগ্রেস আসনগুলি নিজেদের দখলে ধরে রাখতে মরিয়া। ভোটের দু’দিন আগে থেকে বিভিন্ন জায়গায় বোমাবাজি, মারধর, ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগ আসছে। বিশেষত ভাঙড়ে পঞ্চায়েত নির্বাচনের মতো বোমাবাজির ঘটনা ঘটেছে। বিরোধী দলগুলির অভিযোগ, বহিরাগত দুষ্কৃতীদের অনুপ্রবেশ হচ্ছে। বসিরহাট কেন্দ্রের সন্দেশখালিতে মহিলাদের রাতপাহারা চলছে।
শনিবার রাজ্যের যে ন’টি কেন্দ্রে ভোট হবে, সেগুলি হল দমদম, বারাসত, বসিরহাট, যাদবপুর, মথুরাপুর, জয়নগর, ডায়মন্ড হারবার, কলকাতা উত্তর ও কলকাতা দক্ষিণ। রাজ্যে এবারের লোকসভা ভোট যত উত্তর থেকে দক্ষিণে এগিয়েছে, তত হিংসার ঘটনা বেড়েছে। ষষ্ঠ দফার ভোটের আগে পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রামে বিজেপির এক মহিলা কর্মী এবং মহিষাদলে এক তৃণমূল কর্মী খুন হয়েছেন। বিজেপি প্রার্থীদের ঘেরাও করার ঘটনা বেড়েছে। ঝাড়গ্রামের বিজেপি প্রার্থী প্রণত টুডু জখম হয়েছেন। বিজেপির একাংশ মনে করছেন, দলীয় প্রার্থীদের ঘেরাও করে আটকে রেখে অন্যত্র ভোট বের করে নেওয়ার চেষ্টা তৃণমূলের কৌশল হয়ে দাঁড়িয়েছে। সপ্তম দফাতেও দলীয় প্রার্থীদের ঘেরাও হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। বিজেপি-সহ বিরোধী দলগুলি নির্বাচন কমিশনকে অবাধ ভোটের ব্যবস্থা নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছে একদিন আগেই। শেষ দফার ভোটে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে কমিশন জানিয়েছে। প্রায় দু’হাজার কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী বিভিন্ন কেন্দ্রে মোতায়েন করা হয়েছে।

IMG 20240531 213544

আর হাজারখানেক কুইক রেসপন্স টিম প্রস্তুত রাখা হচ্ছে, যাদের কাজ হবে ঘেরাও বা গন্ডগোল হলে ঘটনাস্থলে দ্রুত ছুটে যাওয়া। কিন্তু তারা সময়মতো না পৌঁছলে অঘটন ঘটে যাওয়ার আশঙ্কা বিরোধীদের।
কলকাতার দু’টি কেন্দ্রের কিছু জায়গায় গন্ডগোলের আশঙ্কা রয়েছে। দক্ষিণ ২৪ পরগনার ডায়মন্ড হারবার কেন্দ্রে ভোটের মার্জিন বাড়ানোর ডাক দিয়েছেন তৃণমূল প্রার্থী তথা দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপি এই কেন্দ্রে ভোট লুটের আশঙ্কা করছে। ক্যানিং, বাসন্তী নিয়েও শঙ্কা রয়েছে। উত্তর ২৪ পরগনার সন্দেশখালিও উত্তেজনাপ্রবণ বলে চিহ্নিত। ভোটের আগে থেকেই বসিরহাট কেন্দ্রের এই অঞ্চলে তৃণমূলের শাহজাহান বাহিনীর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছেন স্থানীয় পুরুষ ও মহিলারা, যাঁদের অনেকেই বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। জমি লুট, মারধর, খুনের চেষ্টার অভিযোগে শাহজাহানরা জেলে থাকলেও তাদের অনুগতরা গোলমাল পাকাতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

City Today News

monika and rishi

Leave a comment