City Today News

সাধুদের একাংশকে মমতার আক্রমণ,বিজেপির পড়ে পাওয়া চোদ্দ আনা

Mamata 809ec3
CM Mamata Banerjee kick start 2024 lok sabha Election campaign from Dhubulia Sukanta sporting Club ground, Krishnanagar under Nadia District in support of Mahua Moitra. Express photo by Partha Paul, Kolkata, 31.03.24 *** Local Caption *** CM Mamata Banerjee kick start 2024 lok sabha Election campaign from Dhubulia Sukanta sporting Club ground, Krishnanagar under Nadia District in support of Mahua Moitra. Express photo by Partha Paul, Kolkata, 31.03.24

বিশেষ সংবাদদাতা, কলকাতা:
লোকসভা ভোটের পঞ্চম দফায় এসে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হঠাৎ কেন সাধুসন্তদের আক্রমণ করতে গেলেন, তা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে নানা চর্চা চলছে। কেউ কেউ বলছেন, এবার মুসলিম ভোটের একটা অংশ বাম-কংগ্রেসের ঘরে ফিরতে পারে। সেই ভোট হাতছাড়া হচ্ছে বুঝে এই সুর চড়ানো, যাতে আগামী দফাগুলিতে তা আটকানো যায়। কেউ কেউ মনে করছেন, মমতার এই আক্রমণে বিজেপির সুবিধা হয়ে গেল।
মমতার বক্তব্য বোধগম্য হচ্ছে না দলেরই একাংশের। নিজেদের মধ্যে আলোচনায় তাঁরা মনে করছেন, এতে সনাতন ধর্মীরা আহত হয়ে থাকতে পারেন। মুখ্যমন্ত্রী ওইসব কথা বলে প্রকারন্তরে বিজেপির হাতে অস্ত্র তুলে দিয়েছেন। এমনিতেই বিজেপি হিন্দু ভোট এককাট্টা করার চেষ্টা করছে। মমতার বক্তব্যে তা আরও জোরদার হতে পারে। পরপর দু’দিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এই ইস্যুতে মমতা ও তৃণমূলের বিরুদ্ধে প্রচার চালানোর সুযোগ পেয়ে গিয়েছেন। বাকি সভাগুলিতেও মোদি এই প্রচার চালিয়ে হিন্দু ভোট কুড়ানোর কাজটা ভালোই সারবেন বলে তাঁদের আশঙ্কা।
এমনিতেই এই ভোটে নিয়োগ দুর্নীতি, রেশন কেলেঙ্কারি, কয়লা ও গোরু পাচার মামলা এবং সন্দশখালিকাণ্ডে তৃণমূল কংগ্রেস বেশ চাপে রয়েছে। তার ওপর সাধুসন্তদের একাংশকে আক্রমণ করে মমতা খুঁচিয়ে ঘা করেছেন বলে মনে করছেন তাঁর দলের একাংশ। শনিবার কামারপুকুরের সভা থেকে মমতা মুর্শিদাবাদের ভারত সেবাশ্রম সংঘের কার্তিক মহারাজের বিরুদ্ধে তোপ দেগে বলেছিলেন, উনি পলিটিক্স করে দেশের সর্বনাশ করেছেন। একই সঙ্গে আসানসোলের রামকৃষ্ণ মিশন ও ইসকনের নাম উল্লেখ করে বলেছিলেন, দিল্লি থেকে নির্দেশ আছে, বিজেপিকে ভোট দেওয়ার জন্য। সাধুসন্তরা এই কাজ কেন করবেন? মমতার এই বক্তব্যে সাধুসন্তদের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া হয়। সংশ্লিষ্টরা অভিযোগ মানতে পারেননি। সোমবার কার্তিক মহারাজ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আইনি নেটিস পাঠিয়ে বলেন, হয় প্রমাণ দিন, নয়তো প্রকাশ্যে ক্ষমা চান। কিন্তু মমতা তাঁর পূর্ব অবস্থানে অনড় থেকেই ফের সুর চড়ান নির্বাচনী সভা থেকে।
আর মমতার অভিযোগ হয়ে উঠল মোদির মোক্ষম অস্ত্র। রবিবার বাংলায় প্রচারে এসে নরেন্দ্র মোদি অভিযোগ করেছেন, নিজেদের মুসলিম ভোটব্যাংকের স্বার্থে সাধুসন্তদের অপমান করছে তৃণমূল কংগ্রেস। এরা একটাও ভোট পাওয়ার যোগ্য নয়। সোমবার ঝাড়গ্রামে প্রচারে এসে মোদি ফের সাধুসন্তদের একাংশকে নিয়ে মমতার আক্রমণের কড়া সমালোচনা করেন। একই সঙ্গে তাঁর সঙ্গে রামকৃষ্ণ মিশনের কী নিবিড় সম্পর্ক, তা তুলে ধরেন। আর এই প্রসঙ্গে শিলিগুড়ির কাছে রামকৃষ্ণ মিশনে দুষ্কৃতীদের হামলার বিরুদ্ধেও গর্জে ওঠেন। সবমিলিয়ে সনাতন হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের ভোট এককাট্টা করার সুযোগকে তিনি পূর্ণ মাত্রায় সদ্ব্যবহার করেছেন।
এই বাংলায় সিংহভাগ হল হিন্দু ভোট। তার বড়ো অংশ যদি এই ইস্যুতে বিজেপির দিকে চলে যায়, তাহলে মমতার দলের বড়ো ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। যদিও মমতা বলেছেন, তিনি কোনও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে কিছু বলেননি। দু’-একজনের বিরুদ্ধে বলেছেন। কিন্তু শনিবার তিনি যা বলেছেন, তা নিয়ে বাংলার রাজনীতিতে বিস্তর জলঘোলা হচ্ছে।

City Today News

monika and rishi

Leave a comment